যুক্তরাষ্ট্রে চুরি যাওয়া গাড়ির শীর্ষে হুন্দাই ও কিয়া

2

যুক্তরাষ্ট্রে ২০২৩ সালে বেশি চুরি হওয়া গাড়িগুলোর মধ্যে শীর্ষে রয়েছে হুন্দাইয়ের দুটি মডেল ও কিয়া। ন্যাশনাল ইন্স্যুরেন্স ক্রাইম ব্যুরোর একটি প্রতিবেদনে সম্প্রতি এ তথ্য উঠে এসেছে। খবর সিএনএন।

গত বছর সবচেয়ে বেশি চুরি হয়েছে হুন্দাই ইলান্ট্রা কমপ্যাক্ট কার, ৪৮ হাজারের বেশি। অন্যদিকে একই কোম্পানির সোনাটা সেডান চুরি হয়েছে ৪৩ হাজারের বেশি। এরপর রয়েছে কিয়া অপটিমা সেডান। এ গাড়ি চুরি হয়েছে ৩০ হাজারের বেশি। চুরির এ সংখ্যা পুলিশের কাছে দায়ের হওয়া অভিযোগের ভিত্তিতে পাওয়া গেছে। এ তালিকার চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে জেনারেল মোটরসের শেভ্রোলেট সিলভেরাডো। প্রায় ২৪ হাজার সিলভেরাডো পিকআপ চুরি হয়েছে ২০২৩ সালে।

সব মিলিয়ে গত বছর যুক্তরাষ্ট্রে চুরি হওয়া শীর্ষ ১০টি গাড়ির মধ্যে ছয়টি ছিল দক্ষিণ কোরিয়াভিত্তিক হুন্দাই ও কিয়ার। কিয়া অন্য মডেলের মধ্যে রয়েছে সোল, ফোর্ট ও স্পোর্টেজ। তালিকায় আরো রয়েছে হোন্ডা অ্যাকোর্ড, হোন্ডা সিভিক ও ফোর্ড এফ-১৫০ পিকআপ।

চলতি বছরের শুরুর দিকে হাইওয়ে লস ডাটা ইনস্টিটিউটের (এইচএলডিআই) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২৩ সালের প্রথমার্ধে ব্যবহৃত হুন্দাই ও কিয়ার চুরি ২০২০ সালের একই সময়ের তুলনায় ১ হাজার শতাংশ বেড়েছে।

২০২৩ সালের আগে তৈরি হুন্দাই ও কিয়ার মডেল চুরি সহজ বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। তুলনামূলক সাশ্রয়ী সংস্করণের গাড়িগুলো প্রযুক্তিগত কারণেই চালু করা সহজ।

২০২০ সাল থেকে হুন্দাই ও কিয়া গাড়ির চুরি বেড়ে যায় বলে জানিয়েছে এইচএলডিআই। প্রতিবেদন অনুসারে, এসব যানবাহনে চুরি প্রতিরোধের প্রযুক্তির অভাব রয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য প্রযুক্তি হলো ইলেকট্রনিক ইমোবিলাইজার। গাড়ির চাবির ব্যবহার নিয়ে তথ্য দেয় এ প্রযুক্তি। এ ধরনের কৌশল ব্যবহার ছড়াতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের ভূমিকা রয়েছে। দুর্বল বীমা ব্যবস্থাপনাও গাড়ি চুরির বাড়ার পেছনে প্রভাবক হিসেবে কাজ করে।

যুক্তরাষ্ট্রে পৃথক কোম্পানি হিসেবে কাজ করলে কিয়ায় বড় অংশীদারত্ব রয়েছে তবে হুন্দাই মোটর গ্রুপের। এ কারণে দুই কোম্পানির অনেকগুলো মডেল একই ধরনের কারিগরি ও প্রযুক্তি ব্যবহার করে থাকে। তবে সাম্প্রতিক মডেলগুলোয় চুরির আশঙ্কা কম।

গাড়ির নিরাপত্তা ব্যবস্থা যথাযথ নয়, হুন্দাই ও কিয়ার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ বেশ পুরনো। চলতি বছরের শুরুর দিকে কোম্পানি দুটি ৯০ লাখ গাড়ির মালিকের সঙ্গে ২০ কোটি ডলার মূল্যের নিষ্পত্তিতে সম্মত হয়েছিল। এ খরচের মধ্যে চুরি যাওয়া ও ক্ষতিগ্রস্ত যানবাহনের জন্য অর্থ দেয়ার পাশাপাশি চুরি প্রতিরোধী সফটওয়্যার ইনস্টলেশন ও অন্যান্য প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থার খরচ অন্তর্ভুক্ত ছিল।

সম্প্রতি কিয়া জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ১১ লাখ গাড়িতে চুরি প্রতিরোধী সফটওয়্যার ইনস্টল করা হয়েছে। অন্যদিকে ১৩ লাখ গাড়িতে একই ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছে হুন্দাই।