ঈদের আগে শেয়ারবাজারে সূচকের বড় লাফ

9

পতনের বৃত্ত থেকে বেরিয়ে আসার আভাস দিচ্ছে দেশের শেয়ারবাজার। ঈদের আগে সবশেষ কর্মদিবস সোমবার প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানের দাম বাড়ার পাশাপাশি সবক’টি মূল্যসূচকের বড় উত্থান হয়েছে। এর মাধ্যমে টানা তিন কার্যদিবস সূচক বাড়লো।

প্রায় দুই মাস ধরে শেয়ারবাজারে অব্যাহত দরপতন হচ্ছে। এতে ডিএসই’র বাজার মূলধন লাখ কোটি টাকার উপরে কমে যায়। এমন পরিস্থিতিতে বাজারে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান হিসেবে শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম আবারও নিয়োগ পাচ্ছেন। তারপর থেকেই শেয়ারবাজার ঊর্ধ্বমুখী ধারায় রয়েছে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, সোমবার শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরু হয় বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার মাধ্যমে। ফলে লেনদেনের শুরুতেই সূচকের ঊর্ধ্বমুখিতার দেখা মেলে। শেষ পর্যন্ত এই ঊর্ধ্বমুখী ধারা অব্যাহত থাকে। এমনকি লেনদেনের শেষদিকে সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা বাড়ে। ফলে সবক’টি সূচকের বড় উত্থান দিয়ে দিনের লেনদেন শেষ হয়।

দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইতে দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে ৩১৬টি প্রতিষ্ঠান।

বিপরীতে দাম কমেছে ৩৬টি প্রতিষ্ঠানের। আর ৪০টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। এতে ডিএসই’র প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ৬৪ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৮৬০ পয়েন্টে উঠে এসেছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে বাছাই করা ভালো ৩০টি কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচক আগের দিনের তুলনায় ১৮ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ৩৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক আগের দিনের তুলনায় ১৪ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ২৮১ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।
সবকটি মূল্যসূচক বাড়লেও ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ কমেছে। ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪১৫ কোটি ৩২ টাকা। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ৪৩৬ কোটি ৭৫ টাকা। সে হিসেবে লেনদেন কমেছে ২১ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। লেনদেনে সব থেকে বেশি অবদান রেখেছে আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ার। কোম্পানিটির ১৭ কোটি ৭৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা লাভেলো আইসক্রিমের ১৬ কোটি ৬৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ১৫ কোটি ১২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে মালেক স্পিনিং।

এ ছাড়া ডিএসইতে লেনদেনের দিক থেকে শীর্ষ দশ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে- শাহিনপুকুর সিরামিকস, সেন্ট্রাল ফার্মাসিউটিক্যালস, ফু-ওয়াং সিরামিকস, এমিরেল্ড অয়েল, বেস্ট হোল্ডিং, এশিয়াটিক ল্যাবরেটরিস এবং আইটিসি। অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক সিএএসপিআই বেড়েছে ৭৩ পয়েন্ট। বাজারটিতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১৫৪টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১১২টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ২৭টির এবং ১৫টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। লেনদেন হয়েছে ৬ কোটি ২৯ লাখ টাকা।