ইতালিতে পোশাক রপ্তানি বাড়াতে চায় বিজিএমইএ

2

বাংলাদেশ ও ইতালির মধ্যে সম্ভাবনাময় বাণিজ্য ও বিনিয়োগের সুযোগগুলো কাজে লাগাতে চায় বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ)। বিশেষ করে ইতালিতে বাংলাদেশি পোশাক ও উচ্চ মূল্যের ফ্যাশন পণ্যের রপ্তানি বাড়ানোর দিকে জোর দিচ্ছে সংগঠনটি।

বিজিএমইএর সভাপতি ফারুক হাসান ইতালির রোমে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মনিরুল ইসলামের সঙ্গে বৈঠকে এই অভিব্যক্তি জানান। বৈঠকে দূতাবাসের ইকোনমিক কাউন্সিলর মো. আল আমিন এবং ফার্স্ট সেক্রেটারি (শ্রম) আসিফ আনাম সিদ্দিকসহ দূতাবাসের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের বর্তমান অবস্থা, ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা এবং রূপকল্প তুলে ধরেন। তিনি মৌলিক আইটেম থেকে শুরু করে হাতে তৈরি ফাইবার এবং প্রযুক্তিগত টেক্সটাইল ভিত্তিক ফ্যাশন আইটেমগুলোর দিকে শিল্পের ক্রমবর্ধমান স্থানান্তরের বিষয়টিও তুলে ধরেন। যেহেতু ইতালির বাজারে হাই-এন্ড পোশাকের যথেষ্ট চাহিদা রয়েছে, তাই বাংলাদেশের জন্য ইতালিতে এ ধরনের পণ্য রপ্তানির যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে।

ফারুক হাসান বাংলাদেশে ইতালিয় বিনিয়োগকারীদের সম্ভাব্য বিনিয়োগের জন্য নন-কটন টেক্সটাইল, খাদ্য ও কৃষি-প্রক্রিয়াকরণ, আইটি, হালকা প্রকৌশল, চামড়া এবং জাহাজ নির্মাণসহ প্রতিশ্রুতিময় খাতগুলোর উপর জোর দেন। তিনি দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, বিশেষ করে বাংলাদেশের প্রতিশ্রুতিশীল শিল্প খাতগুলোতে ইতালি থেকে বিনিয়োগ আকর্ষণ এবং ইতালিয় ক্রেতারা যারা বাংলাদেশ থেকে পোশাক সোর্সিং করে না, তাদেরকে বাংলাদেশ থেকে পোশাক সোর্সিং করার জন্য উদ্বুদ্ধকরণের বিষয়ে দূতাবাসের সহযোগিতা কামনা করেন।

বিজিএমইএ সভাপতি ব্যবসায়িক যোগাযোগ বাড়াতে ঢাকা ও রোমের মধ্যে সরাসরি ফ্লাইট চালুর প্রয়োজনীয়তাও তুলে ধরেন। তিনি ব্যবসায়িক যোগাযোগ বাড়ানোর জন্য রাষ্ট্রদূতকে কনস্যুলার পরিষেবাগুলোকে আরও সহজীকরণ করার এবং ব্যবসায়ীদের জন্য ভিসা প্রাপ্তির প্রক্রিয়া সহজ করার আহ্বান জানান।