চলতি অর্থবছরে মুনাফার পূর্বাভাস বাড়িয়েছে হোন্ডা

3

চলতি অর্থবছরে নিট মুনাফার পূর্বাভাস বাড়িয়েছে হোন্ডা মোটরস। এ সময়ে ৬৫০ কোটি ডলার বা ৯৬ হাজার কোটি ইয়েন মুনাফার আশা করছে জাপানি অটো জায়ান্টটি। এর আগে গত বছরের এপ্রিলে শুরু হওয়া অর্থ বছরের জন্য ৯৩ হাজার কোটি ইয়েন মুনাফার পূর্বাভাস দেয়া হয়েছিল। বছরওয়ারি এটি ৪৭ দশমিক ৪ শতাংশ বৃদ্ধির প্রতিনিধিত্ব করে। খবর মাইনচি।

চলতি অর্থবছর শেষ হবে মার্চে। উত্তর আমেরিকায় গাড়ির চাহিদা বৃদ্ধি ও ডলারের বিপরীতে ইয়েনের অবমূল্যায়ন এ অর্থবছরে হোন্ডার মুনাফা বাড়াতে সহায়তা করছে।

পরিচালন মুনাফার পূর্বাভাস ১ দশমিক ২ ট্রিলিয়ন ইয়েন থেকে বাড়িয়ে ১ দশমিক ২৫ ট্রিলিয়ন করেছে হোন্ডা মোটরস। একই সঙ্গে বাড়িয়েছে বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা। ২০ ট্রিলিয়ন থেকে বাড়িয়ে ২০ দশমিক ২ ট্রিলিয়ন ইয়েন ঘোষণা করা হয়েছে। এর ফলে নতুন পরিসংখ্যানে বছরওয়ারি যথাক্রমে ৬০ দশমিক ১ শতাংশ ও ১৯ দশমিক ৫ শতাংশ বৃদ্ধির পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে।

সম্প্রতি এক সংবাদ সম্মেলনে হোন্ডা মোটরসের চিফ ফাইন্যান্সিয়াল অফিসার ইজি ফুজিমুরা বলেন, ‘চলতি আর্থিক বছরের প্রথমার্ধে সেমিকন্ডাক্টর ঘাটতির কারণে সরবরাহ চেইনে ব্যাঘাত ঘটেছিল। তবে উত্তর আমেরিকায় চাহিদা বৃদ্ধি ও হাইব্রিড মডেলের ব্যাপক বিক্রি আর্থিক পুনরুদ্ধারে সহায়তা করেছে।’

গাড়ির পাশাপাশি মোটরসাইকেলের বিক্রিও বেড়েছে হোন্ডা মোটরসের। ইজি ফুজিমুরা বলেন, ‘ব্রাজিল, তুরস্ক ও ইউরোপে মোটরসাইকেল বিক্রি ব্যাপক বেড়েছে। স্থানীয় অর্থনীতিতে মন্দা ও কঠোর ঋণ ব্যবস্থার কারণে ভিয়েতনাম ও থাইল্যান্ডে চাহিদা মন্থর হয়েছে।’

চলতি অর্থবছরে রেকর্ড আয়ের আশা করলেও চীনের বাজার নিয়ে উদ্বিগ্ন হোন্ডা কর্তৃপক্ষ। কারণ কোম্পানিটি এখনো বিশ্বের বৃহত্তম গাড়ি বাজারে ক্রমবর্ধমান বিদ্যুচ্চালিত গাড়ির (ইভি) তীব্র চাহিদা মেটানো সক্ষমতা অর্জন করতে পারেনি। চীনে মূলত পেট্রলচালিত ও হাইব্রিড মডেলের গাড়ির ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে হোন্ডা।

যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে গত এপ্রিল-ডিসেম্বরে প্রায় ১০ লাখ ২ হাজার গাড়ি বিক্রি করেছে হোন্ডা মোটরস, যা আগের বছরের তুলনায় ৪২ দশমিক ৮ শতাংশ বেশি। একই সময়ের মধ্যে জাপানের বাজারে গাড়ি বিক্রি হয়েছে ৪ লাখ ২৭ হাজার, যা এক বছর আগের চেয়ে ৮ দশমিক ৬ শতাংশ বেশি। এ বৃদ্ধির পেছনেও ভূমিকা রেখেছে দেশটির দুর্বল মুদ্রা।

হোন্ডা কর্তৃপক্ষের প্রত্যাশা, মার্চ পর্যন্ত ডলারের বিপরীতে ইয়েনের বিনিময় হার থাকবে ১৪২, যা আগের বছর ছিল ১৩৫ ইয়েন। কোম্পানিটি বলছে, কাঁচামালের কম দাম, পাইপে ব্যবহৃত মূল্যবান ধাতুর দাম ও গাড়ির কিছু মডেলের দাম বাড়ার মতো বিষয়গুলোও পূর্বাভাস সংশোধনে সহায়তা করেছে।

হোন্ডা মোটরসের প্রতিবেদন অনুসারে, ৩১ ডিসেম্বর শেষ হওয়া নয় মাসে কোম্পানির নিট মুনাফা দাঁড়িয়েছে ৮৬ হাজার ৯৬১ কোটি ইয়েন, যা আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে ৪৯ দশমিক ১ শতাংশ বেশি।

এছাড়া একই সময়ে কোম্পানিটির বিক্রি ১৯ দশমিক ৮ শতাংশ বেড়ে ১৫ ট্রিলিয়ন ইয়েন হয়েছে। পাশাপাশি পরিচালন মুনাফা ৪৬ দশমিক ৭ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ১ দশমিক শূন্য ৮ ট্রিলিয়ন ইয়েন।