ব্যাংকিং খাতে প্রথম ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন সামিট শুরু

123

দেশের ব্যাংকিং খাতে প্রথমবারের মতো ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন সামিটের আয়োজন করেছে অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ লিমিটেড (এবিবি)। বুধবার (২৪ মে) প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে প্রধান অতিথি হিসেবে সামিটের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার।

এবিবির চেয়ারম্যান এবং ব্র্যাক ব্যাংকের এমডি ও সিইও সেলিম আর. এফ. হোসেন, এবিবির বোর্ড অব গভর্নরস এবং বিভিন্ন ব্যাংকের এমডি ও সিইওরা সামিটে উপস্থিত ছিলেন।

দেশের ব্যাংকিং খাতের ডিজিটাল রূপান্তর যাত্রা নিয়ে আলোচনা করার লক্ষ্যে সামিটে বাংলাদেশের ৪৬টি বাণিজ্যিক ব্যাংক থেকে ১৫০ জনের বেশি কর্মকর্তা অংশগ্রহণ করছেন।

সম্মেলন উপলক্ষে এবিবি এবং পিডব্লিউসি যৌথভাবে ‘ব্যাংকিং ইভলুশন: ড্রিভেন বাই ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন’ শিরোনামের একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। প্রতিবেদনে বাংলাদেশে ডিজিটাল রূপান্তরের জন্য গৃহীত কৌশলগুলি বিশ্লেষণ করতে বিভিন্ন ব্যাংকের সিএক্সও পর্যায়ের নির্বাহীদের নিয়ে একটি জরিপ স্থান পেয়েছে।

সম্মেলনে ডিবিএস সিঙ্গাপুর, ইএন্ডওয়াই, আইবিএম, বাংলাদেশ ব্যাংক, গ্রামীণফোন, ইউনিলিভার, হুয়াওয়ে, ওরাকল, আইটি কনসালট্যান্ট লিমিটেড, লেন্ট্রা, থাকরাল, ওরোজেনিক, মাস্টারকার্ড, কেপিএমজি, ডেলয়েট, এটুআই, বিআইবিএম সহ স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক কোম্পানি ও সংস্থার বিশেষজ্ঞরা বিভিন্ন সেশন পরিচালনা করছেন।

সম্মেলনের লক্ষ্য বাংলাদেশে ডিজিটাল আর্থিক সেবার প্রবৃদ্ধিকে ত্বরান্বিত করে প্রধান গতিধারাগুলোর উপর আলোকপাত করা। দ্রুত ডিজিটাল রূপান্তরের মধ্যে পথ চলতে ব্যাংকগুলো যে কৌশলগুলি গ্রহণ করতে পারে তা বিশ্লেষণ করে মূল্যবান পর্যবেক্ষণ প্রদান করা সম্মেলনের লক্ষ্য। এছাড়া এর লক্ষ্য আর্থিক সেবা খাতকে প্রভাবিত করে এমন বিদ্যমান নীতি এবং নিয়ন্ত্রক কাঠামো নিয়ে গবেষণা করা। এ শিল্পের স্টেকহোল্ডার, ইকোসিস্টেম এনাবেলার্স ও নীতি নির্ধারকদের এগিয়ে যাওয়ার পথে সুপারিশ দিয়ে এই সম্মেলন সহযোগিতা এবং একীভূত লক্ষ্য অর্জনে ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্ঠাকে বৃদ্ধি করেছে।

সম্মেলন নিয়ে এবিবি’র চেয়ারম্যান সেলিম আর. এফ. হোসেন বলেন, “এবিবি’র ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন সামিট বাংলাদেশে ডিজিটাল আর্থিক সেবার প্রবৃদ্ধিকে ত্বরান্বিত করা প্রধান গতিধারাগুলো সম্পর্কে মূল্যবান পর্যবেক্ষণ প্রদান করবে। এটি দ্রুত ডিজিটাল রূপান্তরের মধ্যে পথ চলার জন্য ব্যাংকগুলি যে কৌশলগুলি গ্রহণ করতে পারে তা বিশ্লেষণ করবে এবং আর্থিক সেবা খাতকে প্রভাবিত করে এমন বিদ্যমান নীতি এবং নিয়ন্ত্রক কাঠামোগুলি নিয়ে গবেষণা করবে। এ ছাড়াও এই সম্মেলন এ খাতের স্টেকহোল্ডার, ইকোসিস্টেম এনাবেলার্স ও নীতি নির্ধারকদের এগিয়ে যাওয়ার পথে সুপারিশ দিবে। একটি একীভূত লক্ষ্যের দিকে একসঙ্গে কাজ করার মাধ্যমে বাংলাদেশের আর্থিক সেবা খাত একটি টেকসই এবং অন্তর্ভুক্তিমূলক ইকোসিস্টেম তৈরি করতে পারে যা সব স্টেকহোল্ডারের উপকারে আসবে।”

সম্মেলনটি এমন সব স্পন্সরের কাছ থেকে পৃষ্ঠপোষকতা পেয়েছে যারা ব্যাংকিং খাতে ডিজিটাল রূপান্তরের গুরুত্ব বোঝে। ইভেন্টের প্ল্যাটিনাম স্পন্সর হুয়াওয়ে, পাওয়ার্ড বাই স্মার্ট। গোল্ড স্পনসরগুলির মধ্যে রয়েছে ওরাকল, পাওয়ার্ড বাই রেডিংটন গ্রুপ এবং আইবিএম, পাওয়ার্ড বাই টাকরল ও লেন্ট্রা। সিলভার স্পন্সর হল মাস্টারকার্ড, ডকুওয়্যার পাওয়ার্ড বাই অরোজেনিক, আইটি কনসালটেন্ট লিমিটেড, পেলজিক এবং মোডফিন পাওয়ার্ড বাই থাকরাল।

নেতৃস্থানীয় পেশাজীবী, সিদ্ধান্ত প্রণেতা এবং এ শিল্পের বিশেষজ্ঞদের অংশগ্রহণের মাধ্যমে ‘ব্যাংকিং অন ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন’ সম্মেলন অর্থপূর্ণ আলোচনা, পর্যালোচনা এবং নেটওয়ার্কিং সুযোগের জন্য একটি প্ল্যাটফর্ম হয়ে ওঠার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে। এটি জ্ঞান আদান প্রদান, সহযোগিতা এবং ডিজিটাল আর্থিক সেবাগুলিতে নতুন সম্ভাবনার অন্বেষণকে সহজতর করবে।