বিএইচবিএফসি’র নতুন ঋণ স্বপ্ননীড় এর উদ্বোধন

140

সম্প্রতি নতুন একটি অর্থায়ন প্রোডাক্ট বাজারে এনেছে বাংলাদেশ হাউজ বিল্ডিং ফাইনান্স করপোরেশন (বিএইচবিএফসি)। প্রোডাক্টটির নাম দেওয়া হয়েছে স্বপ্ননীড়। আজ ১৯ মার্চ, রবিবার রাজধানীর বিএইচবিএফসি ভবনে প্রোডাক্টটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ (এফআইডি)র সচিব শেখ মোহাম্মদ সলীম উল্লাহ প্রধান অতিথি হিসেবে এর শুভ উদ্বোধন করেন।

প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিএইচবিএফসি পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মো. সেলিম উদ্দিন, এফসিএ, এফসিএমএ এবং অন্যান্য পরিচালকবৃন্দ বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

বিএইচবিএফসির ঊর্ধ্বতন নির্বাহী এবং বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার রিপোর্টারগণ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। প্রতিষ্ঠানটির সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠানে সংযুক্ত ছিলেন।

প্রধান অতিথি শেখ মোহাম্মদ সলীম উল্লাহ স্বপ্ননীড় শীর্ষক গৃহ নির্মাণ অর্থায়ন প্রোডাক্টটি অভীষ্ট জনগোষ্ঠী, তথা সরকারি-বেসরকারি শিক্ষক, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কর্মচারী, নিবন্ধিত স্বাস্থ্যকর্মী, ল্যাব অ্যাসিস্ট্যান্ট ও বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি দপ্তরে কর্মরত নিম্ন আয়ের চাকরিজীবীদের স্বপ্নের গৃহ নির্মাণে অত্যন্ত সহায়ক ভূমিকা পালন করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ড. মো. সেলিম উদ্দিন সমাজের বিশেষ শ্রেণি-পেশার বৃহৎ এক জনগোষ্ঠী সাশ্রয়ী মূল্যে নিরাপদ আবাসিক গৃহ নির্মাণে এ অর্থায়ন সুবিধা গ্রহণ করে ব্যাপকভাবে উপকৃত হবে মর্মে উল্লেখ করেন। বিএইচবিএফসি ব্যবস্থাপনা পরিচালক তার স্বাগত বক্তব্যে স্বপ্ননীড় অর্থায়ন ব্যবস্থার বিস্তারিত বর্ণনাসহ এর সুবিধাসমূহ উল্লেখ করেন।

গৃহ নির্মাণে ঋণ ও বিনিয়োগ সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে সরকারের একমাত্র বিশেষায়িত সংস্থা বিএইচবিএফসি দীর্ঘ সাত দশকেরও বেশি সময় ধরে পরিবেশবান্ধব আবাসন নির্মাণে কাজ করছে। সহজ শর্ত ও দীর্ঘ মেয়াদে ঋণ দেয় এ সংস্থা। স্বপ্ননীড় বিএইচবিএফসি’র ১২তম ঋণ ও বিনিয়োগ প্রোডাক্ট।

ঢাকা ও চট্টগ্রাম মেট্রো এলাকায় এর সুদ কিংবা মুনাফার হার ৯ শতাংশ। এ দুটি এলাকার বাইরে এ হার মাত্র ৮ শতাংশ। কম-বেশি এক হাজার বর্গফুটের গৃহ নির্মাণে এ প্রোডাক্টের আওতায় সর্বোচ্চ সাতাশ লক্ষ টাকা পর্যন্ত নেওয়া যাবে। গ্রুপ ভিত্তিতে বহুতল ভবনের একক ইউনিট নির্মাণে নেওয়া যাবে সর্বোচ্চ ১৯ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা।

স্বপ্ননীড় প্রোডাক্টের অন্যতম বিশেষ দিক হলো, এর আওতায় টাকা নিতে গ্রাহককে বিনিয়োগ করতে হবে মোট খরচের মাত্র ১০ শতাংশ। বাকি ৯০ শতাংশই পাওয়া যাবে ঋণ কিংবা বিনিয়োগ আকারে। অর্থাৎ মাত্র ৩ লক্ষ টাকার ইকুইটির বিপরীতে সর্বোচ্চ ২৭ লক্ষ টাকার ঋণ বা বিনিয়োগ মিলবে এ প্রোডাক্টের অধীনে।

এর আরেকটি বিশেষ সুবিধা: আবেদন ও পরিদর্শন ফি’র ক্ষেত্রে বিশেষ ছাড়। অন্য প্রোডাক্টের তুলনায় যা অর্ধেকের সমান। এ প্রোডাক্টের একজন গ্রহীতাকে ৮ শতাংশ হার সুদ বা মুনাফায় প্রতি এক লক্ষ টাকায় ২৫ বছর মেয়াদে মাসিক কিস্তি দিতে হবে মাত্র ৭৭১ টাকা ২০ পয়সা। ৯ শতাংশ হারে এর পরিমাণ মাত্র ৮৩৯ টাকা ২০ পয়সা।