স্মার্টফোন চার্জিংয়ে যে ভুলগুলো এড়ানো প্রয়োজন

6

স্মার্টফোন যথাযথভাবে ব্যবহারে চার্জ দেয়া গুরুত্বপূর্ণ। সঠিকভাবে চার্জ দেয়া না হলে দরকারি সময়ে ডিভাইসটি বন্ধ হয়ে যাবে। এ কারণে স্মার্টফোন চার্জ দেয়ার সময় কিছু নিয়ম অনুসরণ করতে হবে। কিন্তু প্রাত্যহিক জীবনে সেলফোন চার্জিংয়ের সময় সবাই কম বেশ কয়েকটি ভুল করে থাকে। এগুলো এড়াতে না পারলে দীর্ঘমেয়াদে শখের ডিভাইসটি ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

অধিকাংশ ব্যবহারকারীই সেলফোন চার্জ দেয়ার বিষয়ে একেবারেই উদাসীন। এর পেছনে অন্যতম কারণ গুরুত্বপূর্ণ কিছু বিষয়ে না জানা। উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান থেকে এসব তথ্য জানানো হয় না। এসকল বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছে গিজচায়না।

অফিশিয়াল চার্জার ব্যবহার

স্মার্টফোন সঠিকভাবে চার্জ দেয়ার ক্ষেত্রে প্রথমেই যে বিষয়টি সামনে আসে সেটি হলো চার্জার। যেকোনো ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন বক্সে যে চার্জার দেয়া হয় সেটি ব্যবহার করাই ভালো। অনেকে থার্ড পার্টি বিভিন্ন চার্জার ব্যবহার করে, যেগুলো স্মার্টফোনের ব্যাটারির জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। কোনো কারণে অফিশিয়াল চার্জার নষ্ট হয়ে গেলে সার্ভিস সেন্টার বা অথোরাইজড দোকান থেকে স্মার্টফোনের জন্য নির্দিষ্ট চার্জার সংগ্রহ করতে হবে।

স্মার্টফোনের ব্যাটারি খালি হতে দেয়া যাবে না

স্মার্টফোনের ব্যাটারি লেভেল ১০০ থেকে শুরু হয়। অনেক সময় চার্জ কমে ব্যাটারি লেভেল ২০ শতাংশের নিচে চলে যায়। তখন ডিভাইস থেকে ব্যাটারি সেভার চালু করার বা চার্জ দেয়ার জন্য সতর্ক করা হয়। বিষয়টি সবার নজরে এলেও অধিকাংশ ব্যবহারকারী বিষয়টি এড়িয়ে যায়। যা ব্যাটারির জন্য ক্ষতিকর। ২০ শতাংশের নিচে ব্যাটারি চলে গেলে সঙ্গে সঙ্গে চার্জ দিতে হবে। ব্যাটারি বারবার মিনিমাল বা সর্বনিম্ন পর্যায়ে নামতে থাকলে এবং প্রতিবার শতভাগ চার্জ দিলে ডিভাইসের কার্যকারিতা প্রতিনিয়ত কমবে।

সকেট থেকে চার্জার খুলে ফেলা

বর্তমান সময়ের স্মার্টফোনগুলোয় ১০০ ভাগ চার্জ হয়ে যাওয়ার পর স্বয়ংক্রিয়ভাবে চার্জ নেয়া বন্ধের ফিচার রয়েছে। চার্জিং বন্ধ হলেও যে চার্জার কাজ করছে না তা নয়। ব্যাটারি যদি ব্যবহার হয়ে কমে যায় তাহলে আবার চার্জ নেয়া শুরু হবে। চার্জিংয়ের সময় স্মার্টফোন ব্যবহার না করার পরামর্শও দিয়েছেন বিশ্লেষকরা। কেননা চার্জ দেয়ার সময় ডিভাইস ব্যবহার করলে সেটি ভালোভাবে কাজ করবে না।

অত্যধিক তাপমাত্রা ব্যাটারির জন্য ক্ষতিকর

চার্জিংয়ের সময় যেসব বিষয় খেয়াল রাখতে হয় সেগুলোর মধ্যে ডিভাইসের তাপমাত্রাও গুরুত্বপূর্ণ। বিশ্লেষকদের মতে, দীর্ঘমেয়াদে ব্যাটারির ক্ষতি সাধনে এটি সবচেয়ে বড় সমস্যা। বেশি তাপমাত্রায় ব্যাটারি বেশি খরচ হয় এবং এর ধারণক্ষমতা কমতে থাকে। ফলে সাধারণ তাপমাত্রায় যেমন ফল পাওয়া যায় বেশি গরম হলে তা আর পাওয়া যায় না।

চার্জ দেয়ার সময় স্মার্টফোন ব্যবহার না করা

সেলফোন বা স্মার্টফোন চার্জ দেয়ার সময় গেম খেলা বা ভিডিও দেখা খুবই ক্ষতিকর। কেননা এর কারণে ডিভাইসের চার্জিং সাইকেল মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। চার্জ দেয়ার সময় ফোন ব্যবহার করলে তা ব্যাটারিকে আরো উত্তপ্ত করে এবং ক্ষতির মাত্রা বাড়িয়ে দেয়।

স্মার্টফোনের ব্যাটারি লাইফ বাড়ানোর জন্য পাঁচটি কার্যকর উপায় রয়েছে।

১. ব্যাটারি একেবারে খালি অবস্থা থেকে শতভাগ চার্জ দেয়ার প্রবণতা কমাতে হবে। এর পরিবর্তে বিভিন্ন হারে চার্জ থাকা অবস্থায় চার্জিংয়ে বসানো ভালো। এছাড়া সারা রাত ডিভাইস চার্জ দেয়া যাবে না।

২. শতভাগের পরিবর্তে ৮০-৯০ শতাংশ পর্যন্ত চার্জ দেয়া ভালো।

৩. ডিভাইস যখন ঠাণ্ডা থাকবে তখন সাবধানতার সঙ্গে র‍্যাপিড চার্জিং প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হবে।

৪. ডিভাইস যত গরম হবে ব্যাটারির আয়ু তত কমবে। এ কারণে চার্জ দেয়ার সময় স্মার্টফোন গরম জায়গায় রাখা যাবে না এবং কোনো কিছু দিয়ে ঢেকে রাখা যাবে না।

৫. চার্জিংয়ের সময় স্মার্টফোন যেন গরম না হয় সেজন্য ভারী গেম, মুভি, স্ট্রিমিংসহ অন্যান্য কাজ বন্ধ রাখতে হবে।