জরুরি চিকিৎসা সামগ্রী আমদানিতে শুল্ক মওকুফ দাবি

9

বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলো সরকারি নীতিমালা অনুয়ায়ী অলাভজনক প্রতিষ্ঠান হওয়ায় সকল ধরনের ট্যাক্স মওকুফ সুবিধা, কোভিড-১৯ চিকিৎসা ও সুরক্ষার সকল উপকরণ আমদানিতে ট্যাক্স মওকুফ সুবিধা অব্যাহত রাখা, জীবন রক্ষাকারী যন্ত্রপাতি যেমন ব্লাডব্যাংক, পেমেন্ট মনিটর, ভেন্টিলেটর, আইসিইউ প্রভৃতি অত্যাধুনিক চিকিৎসা যন্ত্রপাতির কর মওকুফের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ এসোসিয়েশন বিপিএমসি নেতৃবৃন্দ।

বুধবার (৩ মার্চ) জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সম্মেলন কক্ষে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান ও অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিব আবু হেনা মোঃ রহমাতুল মুনিমের সাথে বিপিএমসিএর প্রতিনিধিদলের ২০২১-২০২২ অর্থ বছরের জাতীয় বাজেট প্রণয়ন সংক্রান্ত আলোচনায় বিপিএমসিএ নেতৃবৃন্দ এ দাবি উত্থাপন করেন।

সংগঠনের সভাপতি এমএ মুবিন খান প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন। জাতীয় রাজস্ব রোর্ডের চেয়ারম্যান দেশের বেসরকারি স্বাস্থ্য খাতের সকল চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য কর্মীদের কোভিড চলাকালীন অক্লান্ত পরিশ্রম করে যে ত্যাগ ও সেবা দিয়েছেন তার প্রশংসা করেন। সরকারিভাবে কোভিড চিকিৎসা ও দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ক্যান্সার, হার্ট প্রভৃতি জটিল রোগের চিকিৎসা প্রদানের জন্য হাসপাতাল স্থাপন করা হলে ট্যাক্স সংক্রান্ত সুবিধা পাওয়ার সুপারিশ করা হবে মর্মে সভায় আশ্বাস প্রদান করেন।

প্রাক-বাজেট আলোচনায় এসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি ও পপুলার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চেয়ারম্যান ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান, গ্রীনলাইফ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডাঃ মোঃ মঈনুল আহসান, জাপান ইষ্ট-ওয়েষ্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চেয়ারম্যান ডাঃ মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন, সিটি মেডিকেল কলেজ ও হাপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডাঃ মোঃ রেফায়েতুল্লাহ শরীফ ও বিপিএমসিএর অর্থ-সম্পাদক ও তায়েরুননেছা মেমোরিয়াল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ হাবিবুল হক এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কর্মকর্তাবৃন্দ সভায় বক্তব্য রাখেন।